• মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ১ ১৪৩১

  • || ০৮ মুহররম ১৪৪৬

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
মুসলিম সম্প্রদায়ের উচিত গাজায় গণহত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া নিজেদের রাজাকার বলতে তাদের লজ্জাও করে না : প্রধানমন্ত্রী দুঃখ লাগছে, রোকেয়া হলের ছাত্রীরাও বলে তারা রাজাকার শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ ‘চীন কিছু দেয়নি, ভারতের সঙ্গে গোলামি চুক্তি’ বলা মানসিক অসুস্থতা দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী : প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ সরকার ব্যবসাবান্ধব সরকার ফুটবলের উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে সরকার যথাযথ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বিশ্বমানের খেলোয়াড় তৈরি করুন চীন সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী টেকসই উন্নয়নে পরিকল্পিত ও দক্ষ জনসংখ্যার গুরুত্ব অপরিসীম বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করতে চায় চীন: শি জিনপিং চীন সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী চীন সফর সংক্ষিপ্ত করে আজ দেশে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী ঢাকা-বেইজিং ৭ ঘোষণাপত্র, ২১ চুক্তি সই চীনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে শেখ হাসিনা রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে চীনের প্রতি সহযোগিতার আহ্বান বাংলাদেশে বিনিয়োগের এখনই উপযুক্ত সময় তিয়েনআনমেন স্কয়ারে চীনা বিপ্লবীদের প্রতি শেখ হাসিনার শ্রদ্ধা চীন-বাংলাদেশ হাত মেলালে বিশাল কিছু অর্জন সম্ভব: প্রধানমন্ত্রী

বরিশাল বিভাগের নদ-নদীর পানি ৫ পয়েন্টে বিপৎসীমা ছাড়িয়ে

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ৮ জুলাই ২০২৪  

অমাবস্যা ও উজানের ঢলে বরিশাল বিভাগের নদ-নদীগুলোতে পানি বাড়ছে। এরইমধ্যে খরস্রোতা নদীগুলোর পাঁচটি পয়েন্টে পানি বিপৎসীমা ছাড়িয়েছে। রোববার (৭ জুলাই) সন্ধ্যায় বরিশাল পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী তাজুল ইসলাম এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, ঝালকাঠি জেলা সদর ও বরগুনার বেতাগী উপজেলা পয়েন্টে বিকেল ৩টায় বিষখালী নদীর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করেছে।  

এ ছাড়া ভোলার তজুমদ্দিন উপজেলা পয়েন্টে ৬০ সেন্টিমিটার এবং দৌলতখান উপজেলা পয়েন্টে ৩১ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে সুরমা-মেঘনা নদীর পানি প্রবাহিত হচ্ছে।  

অপরদিকে পিরোজপুরের বলেশ্বর নদীর পানি বিপৎসীমার ৪ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

এ ছাড়া পিরোজপুরের উমেদপুর এলাকায় কচা নদীর পানি বিপৎসীমার ১ সেন্টিমিটার নিচে রয়েছে। বরিশালের কীর্তনখোলা নদীতে পানি বিপৎসীমার ৫ সেন্টিমিটার নিচে।  

পাশাপাশি ভোলা খেয়াঘাট সংলগ্ন তেঁতুলিয়া, পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ, বরগুনার আমতলী পয়েন্টে পায়রা নদীর পানি বেড়েছে।

তাজুল ইসলাম বলেন, দক্ষিণাঞ্চলে বর্ষাকালে পানি বৃদ্ধির চিত্র স্বাভাবিক। অমাবস্যার প্রভাবে টানা বৃষ্টিপাতে নদীর পানি আরও বাড়িয়েছে। তবে দক্ষিণাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার আভাস নেই। নদীর পানি বেড়ে যাওয়ার কারণে যেসব এলাকায় পানি ঢুকেছে, ঢল নেমে গেলে সেসব এলাকায় ভাঙন দেখা দিতে পারে।

বরগুনার আলো