• রোববার   ২২ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৭ ১৪২৯

  • || ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
রূপপুর মেটাবে বিদ্যুতের চাহিদা, দেবে লাভও দ্রব্যমূল্য নিয়ে ৩ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ বৈশ্বিক সংকট মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রীর ৪ দফা প্রস্তাব পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র পরিবেশবান্ধব: প্রধানমন্ত্রী খালেদাকে পদ্মায় ফেলতে আর ইউনূসকে চুবিয়ে তুলতে বললেন শেখ হাসিনা কক্সবাজার হবে আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলের রিফুয়েলিং পয়েন্ট কক্সবাজারে যত্রতত্র স্থাপনা নির্মাণ না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী কক্সবাজারে কউক’র নতুন ভবনের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর টোল নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি আওয়ামী লীগ সরকার আছে বলেই সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে- প্রধানমন্ত্রী ওপেনিংয়ে চতুর্থ সেরা জুটি গড়ে ফিরলেন জয়, তামিমের সেঞ্চুরি নিত্যপণ্যের দাম কেন চড়া, জানালেন প্রধানমন্ত্রী স্বদেশ প্রত্যাবর্তন: শেখ হাসিনা দেশের মানুষের শেষ ভরসাস্থল শেখ হাসিনা বাঙালি জাতির নিরাপদ আশ্রয়স্থল শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ইতিহাসে মাইলফলক: রাষ্ট্রপতি চার দশকেরও বেশি সময় শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বে আ.লীগ উৎপাদন বাড়ানোর পাশাপাশি খাদ্য সাশ্রয় করুন: প্রধানমন্ত্রী সবাই স্বাধীনভাবে সরকারের সমালোচনা করতে পারে: প্রধানমন্ত্রী টাকা অপচয় করা যাবে না: প্রধানমন্ত্রী ‌ঢাকায় বসে সমালোচনা না করে গ্রামে ঘুরে আসুন

বরগুনায় ইলিশ শিকারে যাচ্ছেন জেলেরা

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ২৬ অক্টোবর ২০২১  

গতরাত ১২টায় শেষ হয়েছে সাগর ও নদ-নদীতে ইলিশ মাছ ধরার ২২ দিনের সরকারি নিষেধাজ্ঞা। আজ মঙ্গলবারের শুরুতে গভীর রাত থেকেই জেলেরা ট্রলার নিয়ে ছুেটছেন সাগরে। নেমেছেন নদীতে।

২২ দিন অলস সময় কাটানোর পর বরগুনার জেলেপাড়াগুলোতে আবারও প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে। জেলে-পাইকার-আড়তদারের পদচারণা হাঁকডাকে মুখর হয়ে উঠবে বরগুনা উপকূলের মৎস্যবন্দরের আড়তগুলো। নিষেধাজ্ঞার শেষ দিনগুলোতে কাজে ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন জেলেরা। দীর্ঘদিন বঙ্গোপসাগর ও নদ-নদীতে মাছ আহরণ বন্ধ থাকায় এখন বেশি মাছ পাবেন বলে আশাবাদী জেলেরা।

অনেক জেলেই মঙ্গলবার দুপুরে সাগরে যাত্রা শুরু করবেন। তারা জানান সরকারের আইনের প্রতি সম্মান রেখে ইলিশ শিকারে যাইনি। এ বিরতিতে আমরা অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি। তবে নিষেধাজ্ঞার সময়ে সরকারের দেওয়া ২০ কেজি চাল পাওয়া গেছে। আজ থেকে আবার মাছ ধরতে পারব ভেবে খুব ভালো লাগছে।

বরগুনা জেলা মৎস্য কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুম উপলক্ষে ৩ অক্টোবর থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত বঙ্গোপসাগর ও নদ-নদীতে ইলিশ মাছ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল সরকার। নিষেধাজ্ঞাকালে জেলার ৩৪ হাজার ৭৪ জন নিবন্ধিত জেলেদের ৬শ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়।

বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী জানান, মধ্যরাতে নিষেধাজ্ঞা শেষ হলে জেলেরা সাগরে যাওয়া শুরু করেছেন।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা বিশ্বজিৎ কুমার জানিয়েছেন, সাগরে ইলিশ ধরার নিষেধাজ্ঞা সফলভাবে পালন করা হয়েছে। স্থানীয় বরফকলগুলো বন্ধ রাখায় হয়েছিল। নিষেধাজ্ঞাকালে জেলেদের সরকারিভাবে খাদ্যসহায়তা দেওয়া হয়েছে।

বরগুনার আলো