• শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১৭ ১৪২৯

  • || ৩০ জ্বিলকদ ১৪৪৩

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
পদ্মা সেতুতে নাশকতার চেষ্টা: আটক ১ সঞ্চয় বাড়ানোর পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা হচ্ছে নতুন মুদ্রানীতি সব ধরনের অপ্রয়োজনীয় ব্যয় কমাতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকার বাজেট পাস হচ্ছে আজ নির্মল রঞ্জন গুহের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক সায়মা ওয়াজেদের মমত্ববোধ রেল ক্রসিংয়ে ওভারপাস করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সড়কে সেতু-উড়াল সড়ক নির্মাণের নির্দেশ ব্যবসা বৃদ্ধিতে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন করা হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী তিন বাহিনীর সমন্বয়ে নিশ্চিত হবে পদ্মা সেতুর নিরাপত্তা চাকরির একমাত্র বিকল্প শিক্ষিত বেকারদের উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তোলা পদ্মা সেতুতে দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন হবে স্বপ্নজয়ের পর অপার সম্ভাবনার হাতছানি পদ্মা সেতু: প্রধানমন্ত্রীকে এশিয়ার পাঁচ দেশের অভিনন্দন ক্ষুদ্র-মাঝারি শিল্পের সুষ্ঠু বিকাশে কাজ করছে সরকার পদ্মা সেতুর সফলতায় প্রধানমন্ত্রীকে কুয়েতের রাষ্ট্রদূতের অভিনন্দন নতুন প্রজন্মকে প্রস্তত হতে বললেন প্রধানমন্ত্রী আমরা বিজয়ী জাতি, মাথা উঁচু করে চলবো: প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

নিজ আবাসেই ফিরল বনবিড়ালের ৫ ছানা

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ১৮ মে ২০২২  

শরীয়তপুর জাজিরায় ঘাস ক্ষেত থেকে পাঁচটি বনবিড়ালের ছানা ধরা হয়েছে। তবে খুবই ছোট হওয়ায় লালন-পালনে ব্যর্থ হয় প্রাণিসম্পদ অফিস। পরে ফের একই স্থানে ছানা পাঁচটি অবমুক্ত করা হয়। মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার বড় গোপালপুর ইউনিয়নের দেওয়ানকান্দি গ্রামে বনবিড়ালের এ পাঁচটি ছানা অবমুক্ত করেন বন কর্মকর্তারা।

এদিন গরুর ঘাস কাটতে গিয়ে এসব ছানা দেখেন দেওয়ানকান্দি গ্রামের লালন মাদবর। প্রথমে বিড়াল ছানা ভেবে ধরতে গেলে মা বনবিড়াল ক্ষিপ্ত হয়ে আক্রমণ করতে আসে। লালনের চিৎকার শুনে লাঠিসোঁটা নিয়ে এগিয়ে আসেন গ্রামের লোকজন। লোকজন দেখে মা বনবিড়াল পালিয়ে গেলেও উদ্ধার করা হয় পাঁচটি ছানা। পরে এসব বাড়িতে নিয়ে যায় স্থানীয়রা। বিষয়টি জানতে পেরে জাজিরা উপজেলা বন কর্মকর্তার কাছে বনবিড়াল ছানাগুলোকে নিয়ে যান স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মী নূর আলম।

উপজেলা বন কর্মকর্তা মো. এনামুল হক বলেন, বনবিড়াল বাচ্চাগুলো আমার হাতে তুলে দিলে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসে পাঠানো হয়। সেখানে বাচ্চাগুলো পরীক্ষা করে জানা যায় সুস্থ আছে। কিন্তু বাচ্চাগুলো এতই ছোট যে তা লালন-পালন করা সম্ভব নয়। তাই যেখান থেকে বাচ্চাগুলো ধরা হয়েছে, সেখানেই সেগুলোকে অবমুক্ত করা হয়।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের কর্মকর্তা ডা. আতিকুর রহমান বলেন, বনবিড়ালের ছানাগুলোর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে দেখেছি বাচ্চাগুলো সম্পূর্ণ সুস্থ। তবে বাচ্চাগুলো এত ছোট যে তা আমাদের লালন-পালন করা সম্ভব নয়। এগুলো লালন-পালন করতে খুলনায় পাঠাতে হবে। সেখানে নিতে নিতেই বাচ্চাগুলো অসুস্থ হতে পারে বা মারাও যেতে পারে। আমরা ঢাকাসহ বিভিন্ন প্রাণিসম্পদ অফিসে যোগাযোগ করে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

বরগুনার আলো