• রোববার ২৬ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১২ ১৪৩১

  • || ১৭ জ্বিলকদ ১৪৪৫

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
ঢাকাবাসীকে সুন্দর জীবন উপহার দিতে কাজ করছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী ঘূর্ণিঝড় রেমাল : ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত জারি ধর্মনিরপেক্ষতা মানে ধর্মহীনতা নয়: প্রধানমন্ত্রী সকালেই প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেবে রেমাল, আছড়ে পড়বে মধ্যরাতে ঘূর্ণিঝড় রেমাল : পায়রা ও মোংলা বন্দরে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত ঢাকায় কোনো বস্তি থাকবে না, দিনমজুররাও ফ্ল্যাটে থাকবে অগ্নিসংযোগকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের হুঁশিয়ারি বঙ্গবাজারে বিপণী বিতানসহ চারটি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন নজরুলের বলিষ্ঠ লেখনী মানুষকে মুক্তি সংগ্রামে উদ্দীপ্ত করেছে জোটের শরিক দলগুলোকে সংগঠিত ও জনপ্রিয় করতে নির্দেশ সন্ধ্যায় ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে রেমাল বঙ্গবাজার বিপনী বিতানসহ ৪ প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী কৃষিতে ফলন বাড়াতে অস্ট্রেলিয়ার প্রযুক্তি সহায়তা চান প্রধানমন্ত্রী বাজার মনিটরিংয়ে জোর দেওয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ‘বঙ্গবন্ধু শান্তি পদক’ দেবে বাংলাদেশ ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক রাইসি-আমির আব্দুল্লাহিয়ান মারা গেছেন: ইরানি সংবাদমাধ্যম সকল ক্ষেত্রে সঠিক পরিমাপ নিশ্চিত করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির ওজন ও পরিমাপ নিশ্চিতে কাজ করছে বিএসটিআই: প্রধানমন্ত্রী চাকরির পেছনে না ছুটে যুবকদের উদ্যোক্তা হওয়ার আহ্বান

কলাবাগানে গৃহকর্মী হেনা হত্যা, পলাতক গৃহকর্ত্রী ডলি গ্রেফতার

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

রাজধানীর কলাবাগান সেন্ট্রাল রোডের একটি বাসায় হেনা (১০) নামে এক গৃহকর্মীকে হত্যার অভিযোগে পলাতক গৃহকর্ত্রী সাথী পারভীন ডলিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। যশোর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। শনিবার (২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে গ্রেফতারের তথ্যটি নিশ্চিত করেন কলাবাগান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম।

তিনি বলেন, যশোর জেলা থেকে পলাতক গৃহকর্মী সাথী পারভীন ডলিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সাথীকে গ্রেফতারের পর পুলিশের একটি টিম যশোর থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত ২৬ আগস্ট কলাবাগান সেন্ট্রাল রোডের একটি বাসা থেকে শিশু গৃহকর্মী হেনাকে হত্যার পর পালিয়ে যান সাথী পারভীন ডলি। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

গত ২৬ আগস্ট কলাবাগানের সেন্ট্রাল রোডের ৭৭ নম্বর ভবনের দ্বিতীয় তলায় ফ্ল্যাট থেকে গৃহকর্মী হেনার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই বাসায় সাথী আক্তার পারভীন, তার শিশু সন্তান আর ওই গৃহকর্মীসহ বসবাস করে আসছিলেন। হেনা ওই বাসায় কাজ করতেন।

পুলিশের ধারণা, গত ২৫ আগস্ট হেনাকে নির্যাতন করে হত্যার পর পালিয়ে যান ডলি। হেনা মারা যাওয়ার পর রান্নার সবকিছু আর মোবাইল ফেলে লাপাত্তা হয়ে যান গৃহকত্রী ডলি।

পরদিন সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বাড়ি মালিক সোসাইটির লোকজন নিয়ে ভবনটির দ্বিতীয় তলার একটি ফ্ল্যাটের দরজা ভেঙে ভেতর থেকে গৃহকর্মী হেনার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

হেনার শরীরে অনেক নতুন ও পুরনো আঘাতের চিহ্ন ও মুখে ফেনা, শরীর ফোলা পায় পুলিশ। যা সুরতহালে উল্লেখ করা হয়।

বরগুনার আলো