• বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ১১ ১৪৩১

  • || ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
ড. ইউনূস কর ফাঁকি দিয়েছেন, তা আদালতে প্রমাণিত: প্রধানমন্ত্রী ‘শেখ হাসিনা দেশ বিক্রি করে না’ অভিন্ন নদীর টেকসই ব্যবস্থাপনা নিয়ে আলোচনা হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী দুই দেশের পারস্পরিক সহযোগিতার পথ নিয়ে আলোচনা করেছি সরকার শিক্ষা ব্যবস্থাকে বহুমাত্রিক করেছে: প্রধানমন্ত্রী অনেক হিরার টুকরা ছড়িয়ে আছে, কুড়িয়ে নিতে হবে বারবার ভস্ম থেকে জেগে উঠেছে আওয়ামী লীগ: শেখ হাসিনা টেকসই ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে যৌথ দৃষ্টিভঙ্গিতে সম্মত: প্রধানমন্ত্রী গণতন্ত্র রক্ষায় আ. লীগ নেতাকর্মীদের সর্বদা প্রস্তুত থাকার নির্দেশ আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তীতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তী আজ ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের ১০ চুক্তি সই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী আগামীকাল দিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে শেখ হাসিনাকে রাজকীয় সংবর্ধনা হাসিনা-মোদী বৈঠক আজ সংলাপের মাধ্যমে বাণিজ্য প্রতিবন্ধকতা দূর করার আহ্বান বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশগুলোর বিনিয়োগকে অগ্রাধিকার দেয় বঙ্গবন্ধুর চার নীতি এবং বাংলাদেশের চার স্তম্ভ সুফিয়া কামালের সাহিত্যকর্ম নতুন প্রজন্মের প্রেরণার উৎস শুক্রবার ভারত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

পরীক্ষার খাতা মূল্যায়নে দায়িত্বহীনতায় হবে শাস্তি

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ১২ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান তপন কুমার সরকার বলেছেন, পাবলিক পরীক্ষার খাতা মূল্যায়নে কোনো শিক্ষকের দায়িত্বহীনতা ও অবহেলা প্রমাণ মিললেই তার শাস্তি নিশ্চিত করা হবে।
সম্প্রতি গণমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বিষয়টি জানান তিনি।

এ সময় তিনি বলেন, এসএসসি পরীক্ষার খাতা মূল্যায়নে যারা দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিয়েছেন ও অবহেলা করেছেন তাদের কালো তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। আগামী পাঁচ বছর পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন ও পরীক্ষা সংক্রান্ত সব ধরনের কার্যক্রম থেকে তাদের অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া ভবিষ্যতে যারা দায়িত্বহীনতার পরিচয় দেবেন কিংবা ন্যূনতম অবহেলা দেখাবেন, তাদের কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না।

শিক্ষা বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা বোর্ডের অধীনে পরিচালিত ২০২৩ সালের এসএসসি পরীক্ষার খাতা পুনর্মূল্যায়নে ৩ হাজার ১৬ জন পরীক্ষার্থীর ফলাফল পরিবর্তন হয়েছে। ফলাফল পরিবর্তন হয়েছে পরীক্ষকদের দায়িত্বহীনতা ও অবহেলার কারণে। ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের কোনো ঘটনা না হয় সে কারণে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড ৩৯ জন পরীক্ষককে আগামী ৫ বছরের জন্য কালো তালিকাভুক্ত করেছে। এসব শিক্ষক ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে পরিচালিত পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন করতে পারবেন না। শুধু তাই নয়, পাবলিক পরীক্ষা সংক্রান্ত কোনো কার্যক্রমে অংশ নিতে পারবেন না তারা।

গত ৫ সেপ্টেম্বর জারি করা ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের অফিস আদেশে বলা হয়, ২০২৩ সালের এসএসসি পরীক্ষার উত্তরপত্র মূল্যায়নে দায়িত্বহীনতা ও অবহেলার জন্য প্রধান পরীক্ষকসহ ৩৯ পরীক্ষককে আগামী পাঁচ বছরের জন্য কালো তালিকাভুক্ত করা হলো। কালো তালিকাভুক্ত শিক্ষকরা মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে অনুষ্ঠাতব্য পাবলিক পরীক্ষায় কোনো ধরনের দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না।

বরগুনার আলো