• বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১৫ ১৪৩০

  • || ১৭ শা'বান ১৪৪৫

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
পুলিশ জনগণের বন্ধু, সে কথা মাথায় রেখেই দায়িত্ব পালন করতে হবে অপরাধের ধরন বদলাচ্ছে, পুলিশকেও সেভাবে আধুনিক হতে হবে পুলিশ সপ্তাহ শুরু, উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী আইনশৃঙ্খলা সমুন্নত রাখতে পুলিশ নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে দেশপ্রেম ও পেশাদারিত্বের পরীক্ষায় বারবার উত্তীর্ণ হয়েছে পুলিশ জনগণের আস্থা অর্জন করলে ভোট পাবেন: জনপ্রতিনিধিদের প্রধানমন্ত্রী জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে উন্নয়ন কাজের ব্যবস্থাটা আমরা নিয়েছিলাম কেউ যেন ভুয়া ক্লিনিক-চিকিৎসকের দ্বারা প্রতারিত না হন: রাষ্ট্রপতি স্থানীয় সরকার বিভাগে বাজেট বরাদ্দ ৬ গুণ বেড়েছে: প্রধানমন্ত্রী স্থানীয় সরকারকে মাটি-মানুষের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক গড়তে হবে শবে বরাতের মাহাত্ম্যে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশের কাজে আত্মনিয়োগের আহ্বান সমাজের অসহায়, দরিদ্র মানুষের সহায়তায় এগিয়ে আসতে হবে দেশের মানুষের জন্য ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে হবে বিচারকদের ক্ষমতার অপব্যবহার রোধকল্পে খেয়াল রাখার আহ্বান মিউনিখ সফরে বাংলাদেশের অঙ্গীকার বলিষ্ঠরূপে প্রতিফলিত হয়েছে পবিত্র রমজানে নিত্যপণ্যের সংকট হবে না: প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্টের অভিনন্দন প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রেখেই সামুদ্রিক সম্পদ আহরণের আহ্বান সমুদ্রসীমার সম্পদ আহরণ করে কাজে লাগানোর তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর ২১ বছর সমুদ্রসীমার অধিকার নিয়ে কেউ কথা বলেনি: শেখ হাসিনা

হাইপার ইউরিসেমিয়া বিপদ, সুস্থ থাকতে যা করতে হবে

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ৮ ডিসেম্বর ২০২৩  

ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা শরীরে স্বাভাবিকের থেকে বেশি হলে তাকে বলা হয় হাইপার ইউরিসেমিয়া। যা বেড়ে গেলে সন্ধিতে প্রদাহ এবং ব্যথা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। কেউ কেউ একে বলে থাকে গেঁটেবাত।

সাধারণত বয়স্ক ও কিডনি রোগীদের ইউরিক অ্যাসিড বৃদ্ধির প্রবাণতা বেশি দেখা দেয়। তবে বর্তমান সময়ে কম বয়সীদের মধ্যে এর হার দেখা যাচ্ছে। এর মূল কারণ স্থূলতা ও অনিয়ন্ত্রিত খাদ্যাভ্যাস। একজন পুরুষের ৩ দশমিক ৪ থেকে ৭ মিলিগ্রাম/ডিএল এবং নারীর জন্য ২ দশমিক ৪ থেকে ৫ দশমিক ৭ মিলিগ্রাম/ডিএল হচ্ছে স্বাভাবিক ইউরিক অ্যাসিড।

হাইপার ইউরিসেমিয়া নিয়ে একটি গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেছেন চট্টগ্রাম ডায়াবেটিক জেনারেল হাসপাতালের জ্যেষ্ঠ পুষ্টি কর্মকর্তা মো. ইকবাল হোসেন। এবার তাহলে তার ভাষ্যমতে হাইপার ইউরিসেমিয়ার উপাদান ইউরিক অ্যাসিড সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক—

যেসব কারণে বাড়ার সম্ভাবনা থাকে

পিউরিনসমৃদ্ধ ও আমিষজাতীয় খাবার খুব বেশি খেলে ইউরিক অ্যাসিড বাড়তে পারে। কেননা, কিডনি ইউরিক অ্যাসিড শরীর থেকে যথেষ্ট পরিমাণ নিষ্কাশন করতে না পারলে তখন এর মাত্রা বেড়ে যায়। ইউরিক অ্যাসিড বিপাকের এনজাইমে যদি ঘাটতি থাকে, ওজন বেশি হলে এবং খাদ্যাভ্যাস অনিয়ন্ত্রিত হলেও এর হার বেশি হয়। আবার ধূমপান বা নেশাজাতীয় দ্রব্য গ্রহণ এবং অনেক সময় বিভিন্ন ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কারণেও ইউরিক অ্যাসিড বেড়ে যেতে পারে।

ইউরিক অ্যাসিড বেড়ে গেলে যেসব ক্ষতি হয়

ইউরিক অ্যাসিড যদি বেড়ে যায় তাহলে হার্ট সংক্রান্ত অসুখ ও কিডনিতে পাথর হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। পায়ের সন্ধিগুলো লাল হয়ে ফুলে যেতে পারে। অনেক সময় পায়ের গোড়ালিতে ব্যথা হয়, সকালে ঘুম থেকে উঠার পর হাঁটতে গেলে কাঁটা ফোটার মতো মনে হতে পারে।

যেসব খাবারে ইউরিক অ্যাসিড বাড়ে

মাছের ডিম, সামুদ্রিক মাছ, খাসি-গরুর মাংস, হাঁস বা ভেড়ার মাংস, মাংসের স্যুপ, কলিজা, মগজ, ফুসফুস, মাশরুম, হাঁস-মুরগির চামড়া, কাঁকড়া, সামুদ্রিক শুঁটকি ও ইলিশ মাছ খেলে ইউরিক অ্যাসিড বাড়ে। আবার মাষকালাই, মসুর ও বুটের ডাল, বাদাম, শিম ও কাঁঠালের বিচি, মটরশুঁটি, পুঁইশাক, পালংশাক, সরিষার শাক, পাটশাক, কচুর লতি ইত্যাদি খেলে ইউরিক অ্যাসিডের পরিমাণ বেড়ে থাকে। এছাড়া ক্রুসিফেরি গোত্রের উদ্ভিত-মুলা, ওলকপি, ব্রকলি, টমেটো, ফুলকপি, শজনে, বেগুন এবং অতিরিক্ত লবণযুক্ত কিংবা প্যাকেটজাত খাবার, চর্বিযুক্ত তেলে ভাজা খাবার খেলেও বেড়ে যায় ইউরিক অ্যাসিড।

যেসব খাবার খেতে হবে

প্রয়োজনীয় প্রোটিনের চাহিদা মেটাতে মিঠা পানির মাছ, চামড়া ছাড়া মুরগির মাংস, ডিম, টক দই, মুগডাল ও দুধ পরিমিত পরিমাণে খেতে হবে। নিয়মিত চালকুমড়া, কুমড়া শাক, সবুজ শাক. লাউশাক, ডাঁটাশাক, লালশাক, পেঁপে, কাঁকরোল, পটোল, করলা, লাউ ইত্যাদি খেতে হবে। এছাড়া মৌসুমি ফলমূলও পর্যাপ্ত পরিমাণে খেতে হবে।

ইউরিক অ্যাসিড হলে করণীয়

অধিকাংশ ক্ষেত্রে ইউরিক অ্যাসিড হলে নিয়ন্ত্রণের জন্য ওষুধের প্রয়োজন হয় না। কিন্তু সন্ধি ফুলে লাল হলে তাৎক্ষণিক চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া দরকার। ইউরিক অ্যাসিড নির্দিষ্ট মাত্রার থেকে বেশি হলে, কিডনি রোগ হলে চিকিৎসকের পরামর্শে ওষুধ সেবন করতে হবে। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী খাদ্যাভ্যাস করতে হবে।

বরগুনার আলো