• শনিবার   ২১ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৬ ১৪২৯

  • || ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
রূপপুর মেটাবে বিদ্যুতের চাহিদা, দেবে লাভও দ্রব্যমূল্য নিয়ে ৩ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ বৈশ্বিক সংকট মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রীর ৪ দফা প্রস্তাব পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র পরিবেশবান্ধব: প্রধানমন্ত্রী খালেদাকে পদ্মায় ফেলতে আর ইউনূসকে চুবিয়ে তুলতে বললেন শেখ হাসিনা কক্সবাজার হবে আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলের রিফুয়েলিং পয়েন্ট কক্সবাজারে যত্রতত্র স্থাপনা নির্মাণ না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী কক্সবাজারে কউক’র নতুন ভবনের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর টোল নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি আওয়ামী লীগ সরকার আছে বলেই সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে- প্রধানমন্ত্রী ওপেনিংয়ে চতুর্থ সেরা জুটি গড়ে ফিরলেন জয়, তামিমের সেঞ্চুরি নিত্যপণ্যের দাম কেন চড়া, জানালেন প্রধানমন্ত্রী স্বদেশ প্রত্যাবর্তন: শেখ হাসিনা দেশের মানুষের শেষ ভরসাস্থল শেখ হাসিনা বাঙালি জাতির নিরাপদ আশ্রয়স্থল শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ইতিহাসে মাইলফলক: রাষ্ট্রপতি চার দশকেরও বেশি সময় শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বে আ.লীগ উৎপাদন বাড়ানোর পাশাপাশি খাদ্য সাশ্রয় করুন: প্রধানমন্ত্রী সবাই স্বাধীনভাবে সরকারের সমালোচনা করতে পারে: প্রধানমন্ত্রী টাকা অপচয় করা যাবে না: প্রধানমন্ত্রী ‌ঢাকায় বসে সমালোচনা না করে গ্রামে ঘুরে আসুন

সীমান্ত নিয়ে আবারও সংঘাতে ভারত-নেপাল

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০২২  

নেপাল এবং ভারতের সীমান্তবর্তী এলাকা উত্তরখাণ্ড নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই বিতর্ক চলে আসছে। সম্প্রতি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর এক বক্তব্যে আবারও শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক। মোদীর বক্তব্যের পাল্টা জবাব দিয়েছেন নেপালের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী জ্ঞানেন্দ্র বাহাদুর কারকি।

ঐ এলাকায় ভোটের প্রচারণায় গিয়ে নরেন্দ্র মোদী বলেছেন, লিপুলেখ পাস পর্যন্ত ভারত যে রাস্তা তৈরি করেছে, তা আরও বাড়ানো হবে। 

এরপরই নেপালের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী জ্ঞানেন্দ্র বাহাদুর কারকি সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, যে জায়গায় মোদী রাস্তা তৈরির কথা বলছেন, তা নেপালের অবিচ্ছেদ্য অংশ। কোনভাবেই সেখানে ভারতকে রাস্তা তৈরি করতে দেওয়া হবে না।

এই বিতর্ক নতুন নয়। এর আগে নেপালের সাবেক প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলির সঙ্গে তীব্র বিতর্ক হয়েছিল ভারতের। 

ওলির নেতৃত্বে নেপাল পার্লামেন্টে নতুন মানচিত্র পাশ হয়েছিল। যেখানে সীমান্তের বেশ কিছু বিতর্কিত অংশ নেপালের বলে দাবি করা হয়েছিল। লিপুলেখ পাস অঞ্চলে কালাপানি পূর্ব পর্যন্ত নেপালের অংশ বলে দেখানো হয়েছিল। লিপুলেখ পাসও নেপালের বলে দাবি করা হয়েছিল। 

ভারত এরমধ্যেই সেই পর্যন্ত রাস্তা তৈরি করে ফেলেছে। এবার সেই রাস্তার সম্প্রসারণ হবে বলে মোদী জানিয়েছেন।

নিজেদের মতামত স্পষ্ট করলেও এখন পর্যন্ত নেপাল এবিষয়ে সরকারিভাবে ভারতকে কিছু জানায়নি। তবে বিতর্ক বাড়লে সমস্যা বাড়বে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। 

কে পি ওলির সময়ে লিপুলেখ পাসটিকেও নেপালের অংশ বলে দাবি করা হয়েছিল। ভারত তার তীব্র বিরোধিতা করেছিল। নেপালের নতুন মানচিত্র ভারত মানে না বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। সাম্প্রতিক বিতর্কেও লিপুলেখ পাস নেপাল তাদের ভূখণ্ড বলে দাবি করছে।

এই বিষয়ে কাঠমান্ডুতে নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত জানিয়েছেন, আলোচনার মাধ্যমের সমস্যার সমাধান হবে। বস্তুত, নেপালও জানিয়েছে এবিষয়ে তারা আলোচনার টেবিলে বসতে রাজি। সংঘাতে তারা যেতে চায় না।

বরগুনার আলো