• শনিবার   ২১ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৭ ১৪২৯

  • || ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
রূপপুর মেটাবে বিদ্যুতের চাহিদা, দেবে লাভও দ্রব্যমূল্য নিয়ে ৩ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ বৈশ্বিক সংকট মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রীর ৪ দফা প্রস্তাব পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র পরিবেশবান্ধব: প্রধানমন্ত্রী খালেদাকে পদ্মায় ফেলতে আর ইউনূসকে চুবিয়ে তুলতে বললেন শেখ হাসিনা কক্সবাজার হবে আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলের রিফুয়েলিং পয়েন্ট কক্সবাজারে যত্রতত্র স্থাপনা নির্মাণ না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী কক্সবাজারে কউক’র নতুন ভবনের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর টোল নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি আওয়ামী লীগ সরকার আছে বলেই সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে- প্রধানমন্ত্রী ওপেনিংয়ে চতুর্থ সেরা জুটি গড়ে ফিরলেন জয়, তামিমের সেঞ্চুরি নিত্যপণ্যের দাম কেন চড়া, জানালেন প্রধানমন্ত্রী স্বদেশ প্রত্যাবর্তন: শেখ হাসিনা দেশের মানুষের শেষ ভরসাস্থল শেখ হাসিনা বাঙালি জাতির নিরাপদ আশ্রয়স্থল শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ইতিহাসে মাইলফলক: রাষ্ট্রপতি চার দশকেরও বেশি সময় শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বে আ.লীগ উৎপাদন বাড়ানোর পাশাপাশি খাদ্য সাশ্রয় করুন: প্রধানমন্ত্রী সবাই স্বাধীনভাবে সরকারের সমালোচনা করতে পারে: প্রধানমন্ত্রী টাকা অপচয় করা যাবে না: প্রধানমন্ত্রী ‌ঢাকায় বসে সমালোচনা না করে গ্রামে ঘুরে আসুন

শেখ হাসিনা অসহাদের কথা মনে রেখেছে

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ১০ নভেম্বর ২০১৮  

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিনামূল্যে দেয়া বাড়ি পেয়ে খুশি উপজেলার ছয় ইউপির ভূমিহীন শতাধিক পরিবার। প্রধানমন্ত্রী তাদের মত গরিব, দুঃখি, অসহায় মানুষের কথা মনে রাখায় তারা ভীষণ খুশি।

প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় যার জমি আছে ঘর নাই তার নিজ জমিতে গৃহ নির্মাণ করে দেয়া হয়েছে পরিবারগুলোকে।

ইউএনও এমজে আরিফ বেগ ও ৬নং ভাতুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শাজাহান সরকার এসব বাড়ি পরিদর্শন করেন।

উপজেলার চাপাসার গুচ্ছগ্রামে বানু নামে এক নারী জানান, স্বাধীনতার ৪৭ বছর পরও শেখ হাসিনা আমাদের মত গরীব, দুঃখি, অসহায় মানুষের কথা মনে রেখেছে। আমার শেষ বয়সে হলেও আমি শেখের বেটি হাসিনার দেয়া বিনামূল্যে একটি বাড়ি পেয়ে ভীষন খুশি। আমার মনের না পাওয়া যতসব বেদনা ছিল তা মুছে গেল। আমি যতদিন বেঁচে থাকব ততোদিন নৌকায় ভোট দিব।

ইউএনও এমজে আরিফ বেগ জানান, স্থানীয় জন প্রতিনিধিদের মাধ্যমে এই পরিবারগুলোর তালিকা সংগ্রহ করে যাচাই বাছাইয়ের মাধ্যমে সরকারের দেয়া পরিপত্র অনুয়ায়ী প্রকৃত দুস্থদের বাড়ি ও স্যানিটেসন নির্মাণ করে দেয়া হচ্ছে। প্রতিটি বাড়ির জন্য ১ লাখ টাকা বরাদ্দ রয়েছে কাজ প্রায় শেষের দিক।

হরিপুর ইউপি চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মংলা জানান, প্রধানমন্ত্রীর দেয়া বিনামূল্যে বাড়ি পেয়ে প্রকৃত গরীব, দুঃখি ও অসহায় পরিবার গুলো খুশি হয়েছে। এ ধরনের বাড়ি পাওয়ার মত গ্রামে অনেক পরিবার রয়েছে। সরকার যেন পরবর্তীতে আবারো নতুন ভাবে বরাদ্দ বাড়ায় গৃহ নির্মাণের ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

বরগুনার আলো