• বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১৫ ১৪৩০

  • || ১৭ শা'বান ১৪৪৫

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা জরুরি গভীর সমুদ্র থেকে গ্যাস উত্তোলনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার পুলিশ জনগণের বন্ধু, সে কথা মাথায় রেখেই দায়িত্ব পালন করতে হবে অপরাধের ধরন বদলাচ্ছে, পুলিশকেও সেভাবে আধুনিক হতে হবে পুলিশ সপ্তাহ শুরু, উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী আইনশৃঙ্খলা সমুন্নত রাখতে পুলিশ নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে দেশপ্রেম ও পেশাদারিত্বের পরীক্ষায় বারবার উত্তীর্ণ হয়েছে পুলিশ জনগণের আস্থা অর্জন করলে ভোট পাবেন: জনপ্রতিনিধিদের প্রধানমন্ত্রী জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে উন্নয়ন কাজের ব্যবস্থাটা আমরা নিয়েছিলাম কেউ যেন ভুয়া ক্লিনিক-চিকিৎসকের দ্বারা প্রতারিত না হন: রাষ্ট্রপতি স্থানীয় সরকার বিভাগে বাজেট বরাদ্দ ৬ গুণ বেড়েছে: প্রধানমন্ত্রী স্থানীয় সরকারকে মাটি-মানুষের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক গড়তে হবে শবে বরাতের মাহাত্ম্যে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশের কাজে আত্মনিয়োগের আহ্বান সমাজের অসহায়, দরিদ্র মানুষের সহায়তায় এগিয়ে আসতে হবে দেশের মানুষের জন্য ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে হবে বিচারকদের ক্ষমতার অপব্যবহার রোধকল্পে খেয়াল রাখার আহ্বান মিউনিখ সফরে বাংলাদেশের অঙ্গীকার বলিষ্ঠরূপে প্রতিফলিত হয়েছে পবিত্র রমজানে নিত্যপণ্যের সংকট হবে না: প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্টের অভিনন্দন প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রেখেই সামুদ্রিক সম্পদ আহরণের আহ্বান

শপথ করে যে ৩ সত্যের কথা বললেন নবিজি (সা.)

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  

আবু কাবশাহ আল আনমারি (রা.) থেকে বর্ণিত তিনি আল্লাহর রাসুলকে (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলতে শুনেছেন, এমন তিনটি বিষয় আছে যার সত্যতার ব্যাপারে আমি শপথ করতে পারি। আমি আপনাদের সামনে আরও একটি বিষয় বলবো, তাও ভালোভাবে স্মরণ রাখবেন। যে ৩ সত্যের ব্যাপারে আমি শপথ করছি তা হলো,

১. সদকা করার কারণে কোনো বান্দার সম্পদ কমে যায় না।

২. যে নির্যাতিত বান্দা নির্যাতনের শিকার হয়ে ধৈর্য ধারণ করে, আল্লাহ তা’আলা তার মর্যাদা বৃদ্ধি করে দেন।

৩. যে বান্দা ভিক্ষার দরজা খোলে, আল্লাহ তাআলা তার অভাব ও নিঃস্বতার দরজা খুলে দেন।

তারপর আল্লাহর রাসুল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বললেন, আরেকটি বিষয় আপনাদের বলবো, ভালোভাবে মনে রাখবেন। দুনিয়ার মানুষ চার শ্রেণীর হয়:

১. এক শ্রেণীর মানুষকে আল্লাহ সম্পদ ও জ্ঞান উভয়টি দান করেছেন, তারা তা ব্যয় করার ক্ষেত্রে আল্লাহকে ভয় করে; আত্মীয়-স্বজনের সাথে সম্পর্ক রক্ষা করে এবং আল্লাহর হকের ব্যাপারে জেনে সে অনুযায়ী খরচ করে। এ শ্রেণীর মানুষ সর্বোত্তম।

২. আরেক শ্রেণীর মানুষকে আল্লাহ জ্ঞান দান করেছেন, সম্পদ দেননি। তবে তারা এ নিয়ত রাখে এবং বলে, যদি আমার ধন-সম্পদ থাকত তাহলে আমি অমুকের মতো নেক কাজে ব্যয় করতাম। তারা প্রথম শ্রেণীর মানুষের মতোই সাওয়াব লাভ করবে।

৩. কিছু মানুষকে আল্লাহ ধন-সম্পদ দিয়েছেন, কিন্তু জ্ঞান দান করেননি। জ্ঞান না থাকায় সে নিজের সম্পদের ব্যাপারে স্বেচ্ছাচারিতায় লিপ্ত হয়, আল্লাহকে ভয় করে না। আত্মীয়স্বজনদের হক আদায় করে না এবং নিজের সম্পদ সঠিক পথে খরচ করে না। এ রকম মানুষ সবচেয়ে নিকৃষ্ট।

৪. আর কিছু মানুষের সম্পদও নেই, জ্ঞানও নেই। তারা আকাঙ্ক্ষা করে, যদি আমার কাছে সম্পদ থাকত, তাহলে আমি ওই ব্যক্তির মতো (তৃতীয় শ্রেণীর মানুষের মতো) খরচ করতাম। এ রকম মন্দ নিয়তের কারণে গুনাহের ক্ষেত্রে তারা তৃতীয় শ্রেণীর মানুষের সমান হয়ে যায়।

বরগুনার আলো