• বৃহস্পতিবার   ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ২০ ১৪২৯

  • || ১০ রজব ১৪৪৪

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
জনগণের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে আসিনি: প্রধানমন্ত্রী সবাইকে হিসাব করে চলার অনুরোধ প্রধানমন্ত্রীর উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ গড়তে কৃষি উন্নয়নের বিকল্প নেই: প্রধানমন্ত্রী ক্রীড়া শিক্ষায় বাস্তবমুখী পদক্ষেপ নিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী জনস্বাস্থ্য নিশ্চিতে নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাদ্যের বিকল্প নেই জনগণকে বিশ্বাস করি, তারা যদি চায় আমরা থাকবো: প্রধানমন্ত্রী ২০২২-২৩ অর্থবছরে ১০ বিলিয়ন ডলারের বেশি রেমিট্যান্স এসেছে ভাষা-সাহিত্য চর্চাও ডিজিটাল করার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ মানহীন শিক্ষায় উচ্চশিক্ষিত বেকার বাড়ছে: রাষ্ট্রপতি মুসলিম উম্মাহকে ফিলিস্তিনের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান দেশের ব্যাপক উন্নয়ন বিবেচনায় নিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত থাকলেই মানুষের উন্নতি হয়: প্রধানমন্ত্রী আমি জোর করে দেশে ফিরেছিলাম, আ.লীগ পালায় না: শেখ হাসিনা আজ ১১ প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী ১-৭ মার্চ মোবাইলে কল করলেই শোনা যাবে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ সন্ত্রাস রুখে দিতে প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখে যাচ্ছে পুলিশ সারদায় কুচকাওয়াজে প্রধানমন্ত্রীকে অভিবাদন বাংলাদেশ পুলিশ শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষায় নিরলসভাবে কাজ করছে

মায়াবী রূপে দেখা দিল কাঞ্চনজঙ্ঘা

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ১৭ অক্টোবর ২০২২  

অবশেষে সূর্যের আলোক ছটায় মায়াবী রূপ নিয়ে দেখা দিয়েছে কাঞ্চনজঙ্ঘা। ভৌগোলিক বৈশিষ্ট্যের কারণে ঋতুরাজ হেমন্তকে পাশ কাটিয়ে অক্টোবরের শেষে নেমে আসবে শীত। ঘনকুয়াশা আর হিমেল হাওয়া নিয়ে মার্চ মাস পর্যন্ত চলে শীতের দাপট। ঠিক এ সময়ে প্রতিবেশী দেশ নেপালের মায়াবী কাঞ্চনজঙ্ঘা পর্বত চায়ের চুমুকেই দেখা মিলে জেলার যেকোনো প্রান্ত থেকেই। সোমবার (১৭ অক্টোবর) সকালের ঝলমলে সূর্যের আলোয় শ্বেত শুভ্রতার সঙ্গে বর্ণিল আলো ছড়িয়ে প্রকৃতিপ্রেমী মানুষদের মুগ্ধ করা সেই কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখা দিল।

মায়াবী কাঞ্চনজঙ্ঘা উদ্ভাসিত হয়েছে হিমালয়ের বিশালতায়। কাঞ্চনজঙ্ঘার অপরূপ রূপ মাধুর্য দৃষ্টি কাড়ছে স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা পর্যটকদের।

পঞ্চগড় জেলা থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘার দূরত্ব ১৬৫ কিলোমিটার হলেও, দেখে মনে হবে যেন প্রবাহমান মহানন্দা নদের উল্টোপাড়েই প্রতিবিম্ব ফেলে দাঁড়িয়ে আছে মায়াবী কাঞ্চনজঙ্ঘা। জেলার যেকোনো প্রান্ত থেকেই কাঞ্চনজঙ্ঘার দেখা মিললেও সবচেয়ে স্পষ্ট দেখায় তেঁতুলিয়া ডাকবাংলো এলাকা থেকে। কেননা এখান থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘার দূরত্ব মাত্র একশ কিলোমিটার, সাথে ভারতীয় সীমান্তে দীর্ঘ ফাঁকা জায়গা। তাই তো সকালে চায়ের কাপে চুমুক দিয়ে প্রকৃতির অপরূপ সৌন্দর্য এক নজর উপভোগ করতে এরই মধ‍্যে তেঁতুলিয়া ডাক বাংলোতে জড়ো হতে শুরু করেছেন শত শত সৌন্দর্য পিপাসু মানুষ।

ঢাকা, খুলনা, বগুড়া ও দিনাজপুর থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখতে আসা পর্যটকরা জানান, পঞ্চগড়ের নৈসর্গিক সবুজ প্রকৃতি আর কাঞ্চনজঙ্ঘার অপরূপ সৌন্দর্য দেখে মুগ্ধ হয়েছে। নিজের দেশের মাটি থেকে প্রতিবেশী দেশে থাকা কাঞ্চনজঙ্ঘার অপরূপ সৌন্দর্য তাদের বিমোহিত করছে। মেঘমুক্ত আবহাওয়া থাকায় খালি চোখে স্পষ্ট কাঞ্চনজঙ্ঘার মনোমুগ্ধকর দৃশ্য প্রকৃতিপ্রেমী লোকজনের মন ভরিয়ে দিচ্ছে।

এদিকে তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহাগ চন্দ্র সাহা জানান, প্রতিবারে মতো এবারও দেশের বিভিন্ন জায়গায় থেকে আসা পর্যটকদের  চলাফেরায় নিরাপত্তা ও রাত যাপনে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

প্রকৃতির অপার সৌন্দর্য কাঞ্চনজঙ্ঘা সূর্যের সঙ্গে লুকোচুরি খেলে তার নিজের রূপকে প্রকাশ করছে বর্ণিল সাজে। কখনও টুকটুকে লাল, কখনও কমলা আবার কখনও হয়ে ওঠে কালো। যখন যে রঙেই ধারণ করুক না কেন কাঞ্চনজঙ্ঘার নয়নাভিরাম দৃশ্যের সঙ্গে উত্তরের নীল আকাশও যেন আরও উজ্জল হয়ে পর্যটকদের দৃষ্টি কাড়ছে।

বরগুনার আলো