• শনিবার   ২১ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৬ ১৪২৯

  • || ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
রূপপুর মেটাবে বিদ্যুতের চাহিদা, দেবে লাভও দ্রব্যমূল্য নিয়ে ৩ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ বৈশ্বিক সংকট মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রীর ৪ দফা প্রস্তাব পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র পরিবেশবান্ধব: প্রধানমন্ত্রী খালেদাকে পদ্মায় ফেলতে আর ইউনূসকে চুবিয়ে তুলতে বললেন শেখ হাসিনা কক্সবাজার হবে আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলের রিফুয়েলিং পয়েন্ট কক্সবাজারে যত্রতত্র স্থাপনা নির্মাণ না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী কক্সবাজারে কউক’র নতুন ভবনের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর টোল নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি আওয়ামী লীগ সরকার আছে বলেই সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে- প্রধানমন্ত্রী ওপেনিংয়ে চতুর্থ সেরা জুটি গড়ে ফিরলেন জয়, তামিমের সেঞ্চুরি নিত্যপণ্যের দাম কেন চড়া, জানালেন প্রধানমন্ত্রী স্বদেশ প্রত্যাবর্তন: শেখ হাসিনা দেশের মানুষের শেষ ভরসাস্থল শেখ হাসিনা বাঙালি জাতির নিরাপদ আশ্রয়স্থল শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ইতিহাসে মাইলফলক: রাষ্ট্রপতি চার দশকেরও বেশি সময় শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বে আ.লীগ উৎপাদন বাড়ানোর পাশাপাশি খাদ্য সাশ্রয় করুন: প্রধানমন্ত্রী সবাই স্বাধীনভাবে সরকারের সমালোচনা করতে পারে: প্রধানমন্ত্রী টাকা অপচয় করা যাবে না: প্রধানমন্ত্রী ‌ঢাকায় বসে সমালোচনা না করে গ্রামে ঘুরে আসুন

নগ্ন ছবি-ভিডিও ছড়ানোর ভয় দেখিয়ে ৫ লাখ টাকা চান প্রেমিক

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ২৬ জানুয়ারি ২০২২  

রাজধানীর মিরপুর মডেল থানা এলাকা থেকে খন্দকার সাব্বির আহম্মেদ (২৪) নামের একজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৪। তার বিরুদ্ধে গোপনে ধারণ করা নগ্ন ছবি ও ভিডিও নিয়ে ব্ল্যাকমেইলের অভিযোগ রয়েছে।

বুধবার (২৬ জানুয়ারি) দুপুরে র‌্যাব-৪ এর অধিনায়ক (সিও) অতিরিক্ত ডিআইজি মো. মোজাম্মেল হক এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, গত ২২ জানুয়ারি একজন ভিকটিম র‌্যাব-৪ এ পর্নোগ্রাফির বিষয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের পর র‌্যাব-৪ এর সাইবার সেল এর তদন্ত ও আসামি গ্রেফতারে গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করে। এর ধারাবাহিকতায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল (মঙ্গলবার) মিরপুর মডেল থানার বশির উদ্দিন রোড এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে।

এ সময় তার কাছ থেকে একাধিক নারী ভিকটিমের বিপুল পরিমাণ নগ্ন ছবি, ভিডিও, ইমো ও ম্যাসেঞ্জার কথোপকথনের স্ক্রিনশট জব্দ করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাব্বির আহমেদ জানান, ভিকটিমের সঙ্গে তার প্রায় এক বছর আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পরিচয় হয়। তখন থেকেই ভিকটিমের সঙ্গে তিনি মাঝে মাঝে ম্যাসেঞ্জারে কথা বলতেন। ধীরে ধীরে তাদের মাঝে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রেমের এক পর্যায়ে ভিকটিমকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সুকৌশলে ভিকটিমের নগ্ন ছবি এবং ভিডিও ধারণ করে এডিট করেন।

এসব নগ্ন ছবি, ভিডিও বন্ধু ও পরিবারের সদস্যদের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ভিকটিমকে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করার জন্য চাপ প্রয়োগ করতে থাকেন। পরবর্তীতে ভিকটিম বিয়ের কথা বললে তিনি বিভিন্নভাবে টাল-বাহানা শুরু করেন। একপর্যায়ে তিনি বিভিন্ন সময় ভিকটিমের কাছে টাকা দাবি করে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন এবং শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন না করলে ধারণকৃত ছবি-ভিডিও ভিকটিমের আত্মীয়-বন্ধুদের কাছে পাঠিয়ে দেওয়ার হুমকি দেন।

এরপর ভিকটিম সম্পর্ক ছিন্ন করার চেষ্টা করলে আসামি ৫ লাখ টাকা দাবি করেন। এছাড়া শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন না করলে তার কাছে থাকা নগ্ন ছবি-ভিডিও ভাইরাল করার হুমকি দেন। গ্রেফতারের পর জিজ্ঞাসাবাদে তার মোবাইলে ও গুগল ড্রাইভে বিপুল পরিমাণ নগ্ন ভিডিও ও ছবি পাওয়া যায়।

গ্রেফতার আসামির বিরুদ্ধে মিরপুর মডেল থানায় পর্নোগ্রাফি আইন ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে বলেও জানান র‌্যাবের এই কর্মকর্তা।

বরগুনার আলো