• শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১৭ ১৪২৯

  • || ৩০ জ্বিলকদ ১৪৪৩

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
পদ্মা সেতুতে নাশকতার চেষ্টা: আটক ১ সঞ্চয় বাড়ানোর পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা হচ্ছে নতুন মুদ্রানীতি সব ধরনের অপ্রয়োজনীয় ব্যয় কমাতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকার বাজেট পাস হচ্ছে আজ নির্মল রঞ্জন গুহের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক সায়মা ওয়াজেদের মমত্ববোধ রেল ক্রসিংয়ে ওভারপাস করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সড়কে সেতু-উড়াল সড়ক নির্মাণের নির্দেশ ব্যবসা বৃদ্ধিতে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন করা হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী তিন বাহিনীর সমন্বয়ে নিশ্চিত হবে পদ্মা সেতুর নিরাপত্তা চাকরির একমাত্র বিকল্প শিক্ষিত বেকারদের উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তোলা পদ্মা সেতুতে দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন হবে স্বপ্নজয়ের পর অপার সম্ভাবনার হাতছানি পদ্মা সেতু: প্রধানমন্ত্রীকে এশিয়ার পাঁচ দেশের অভিনন্দন ক্ষুদ্র-মাঝারি শিল্পের সুষ্ঠু বিকাশে কাজ করছে সরকার পদ্মা সেতুর সফলতায় প্রধানমন্ত্রীকে কুয়েতের রাষ্ট্রদূতের অভিনন্দন নতুন প্রজন্মকে প্রস্তত হতে বললেন প্রধানমন্ত্রী আমরা বিজয়ী জাতি, মাথা উঁচু করে চলবো: প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

ডলারের দাম কিছুটা কমেছে

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ১৯ মে ২০২২  

ডলারের দাম একদিনের ব্যবধানে কিছুটা কমেছে। বুধবার (১৮ মে) দিনের শেষ দিকে খোলাবাজারে প্রতি ডলার ৯৭ টাকা ৫০ পয়সা থেকে ৯৮ টাকায় বিক্রি হয়েছে। আর ব্যাংকগুলো ৯২ টাকা ৪৫ পয়সা থেকে ৯৮ টাকায় ডলার বিক্রি করেছে।

বুধবার (১৮ মে) মতিঝিল, দিলকুশা, পল্টন এলাকায় ব্যাংকপাড়া ও কার্ব মার্কেটে (খোলা বাজারে) আলাপকালে এমনটিই জানা গেছে।

ব্যাংকগুলোতে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বুধবার সোনালী ব্যাংক ডলার বিক্রি করেছে ৯২ টাকা ৪৫ পয়সা থেকে ৯২ টাকা ৫০ পয়সা। অগ্রণী ব্যাংক ডলার ৯২ টাকা ৫০ পয়সায় এবং জনতা ব্যাংক ৯৪ টাকায় ডলার বিক্রি করেছে। তবে বেসরকারি ব্যাংকের ডলারের দাম আরেকটু বেশি ছিল।

এদিকে, মানি এক্সচেঞ্জগুলোর সঙ্গে আলাপকালে কর্মকর্তা জানিয়েছেন, দিনশেষে প্রতি ডলার ৯৭ টাকা ৫০ পয়সা থেকে ৯৮ টাকায় বিক্রি হয়েছে। তবে সকালে বিক্রি হয়েছে ৯৯ টাকা থেকে ১০০ টাকায়। কোন কোন মানি এক্সচেঞ্জ বুধবার সকালে প্রতি ডলার ১০১ টাকায় বিক্রি করেছে।

পুরানা পল্টনের ইস্টার্ন ইউনিয়ন মানি এক্সচেঞ্জের কর্মকর্তা শওকত আলী বলেন, মঙ্গলবার ডলারের রেট ১০২ টাকার উপরে ছিল। বুধবার সকালে ডলারের রেট পড়ে গেছে। বুধবার সকালে ডলার বিক্রি হয়েছে ১০০ টাকায়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দাম কমেছে। দিনের শেষ দিকে প্রতি ডলার ৯৭ টাকা ৫০ পয়সা থেকে ৯৮ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

দিলকুশার নিউ প্রাইম মানি এক্সচেঞ্জের কর্মকর্তা মান্নু আহমেদ বলেন, মঙ্গলবার ডলারের সঙ্কট ছিল। তাতে রেট বেড়ে যায়। ওইদিন ডলার ১০২ টাকা ৩০ পয়সায় বিক্রি করেছি। তবে বুধবার সকালে তা কিছুটা কমেছে, বিকালে ডলারের রেট ছিল ৯৯ টাকা। সর্বশেষ ৯৮ টাকায় ডলার বিক্রি হয়েছে।

বনানী সুপার মার্কেটের ফেডারেল মানি এক্সচেঞ্জের কর্মকর্তা মামুন বলেন, বুধবার সকালে সর্বোচ্চ ১০১ টাকায় ডলার বিক্রি হয়েছে। কিন্তু দিন শেষে ডলারের রেট পড়ে গেছে। দিনের শেষ দিকে প্রতি ডলার বিক্রি হয়েছে ৯৮ টাকায়।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক সর্বশেষ গত সোমবার ডলারের দাম ৮৭ টাকা ৫০ পয়সা পুনঃনির্ধারণ করেছে। এর একদিনের মাথায় মঙ্গলবার খোলা বাজারে ডলারের দাম ১০২ টাকা অতিক্রম করেছে।

ডলারের দাম পর্যালোচনায় দেখা গেছে, চলতি বছরের ৬ জানুয়ারি পর্যন্ত আন্তঃব্যাংক মুদ্রাবাজারে প্রতি ডলার কেনাবেচা হয়েছিল ৮৫ টাকা ৮০ পয়সা। যা ৯ জানুয়ারি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৬ টাকা। গত ২৩ মার্চ তা বেড়ে ৮৬ টাকা ২০ পয়সায় বেচাকেনা হয়। গত ২৭ এপ্রিল ডলার প্রতি ২৫ পয়সা বেড়ে ৮৬ টাকা ৪৫ পয়সায় বেচাকেনা হয়েছে। গত ১০ মে ডলার প্রতি আরো ২৫ পয়সা বেড়ে ৮৬ টাকা ৭০ পয়সায় বেচাকেনা হয়েছে। আর ১৬ মে আন্তঃব্যাংক মুদ্রাবাজারে প্রতি ডলার কেনাবেচা ৮৭ টাকা ৫০ পয়সা নির্ধারণ করে দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। তাতে এক সপ্তাহের ব্যবধানে ডলারের দাম ১ টাকা ৫ পয়সা বেড়েছে। এক মাসের ব্যবধানে প্রতি ডলারের দাম বেড়েছে ১ টাকা ৩০ পয়সা।

বরগুনার আলো