• বৃহস্পতিবার   ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ২০ ১৪২৯

  • || ১০ রজব ১৪৪৪

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
জনগণের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে আসিনি: প্রধানমন্ত্রী সবাইকে হিসাব করে চলার অনুরোধ প্রধানমন্ত্রীর উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ গড়তে কৃষি উন্নয়নের বিকল্প নেই: প্রধানমন্ত্রী ক্রীড়া শিক্ষায় বাস্তবমুখী পদক্ষেপ নিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী জনস্বাস্থ্য নিশ্চিতে নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাদ্যের বিকল্প নেই জনগণকে বিশ্বাস করি, তারা যদি চায় আমরা থাকবো: প্রধানমন্ত্রী ২০২২-২৩ অর্থবছরে ১০ বিলিয়ন ডলারের বেশি রেমিট্যান্স এসেছে ভাষা-সাহিত্য চর্চাও ডিজিটাল করার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ মানহীন শিক্ষায় উচ্চশিক্ষিত বেকার বাড়ছে: রাষ্ট্রপতি মুসলিম উম্মাহকে ফিলিস্তিনের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান দেশের ব্যাপক উন্নয়ন বিবেচনায় নিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত থাকলেই মানুষের উন্নতি হয়: প্রধানমন্ত্রী আমি জোর করে দেশে ফিরেছিলাম, আ.লীগ পালায় না: শেখ হাসিনা আজ ১১ প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী ১-৭ মার্চ মোবাইলে কল করলেই শোনা যাবে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ সন্ত্রাস রুখে দিতে প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখে যাচ্ছে পুলিশ সারদায় কুচকাওয়াজে প্রধানমন্ত্রীকে অভিবাদন বাংলাদেশ পুলিশ শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষায় নিরলসভাবে কাজ করছে

সাউথ এশিয়ান ট্রাভেল অ্যাওয়ার্ড পেল বাংলাদেশের রিসোর্ট

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ৮ অক্টোবর ২০২২  

সাউথ এশিয়ান ট্রাভেল অ্যাওয়ার্ডে (সাটা) তিন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছে বাংলাদেশের সায়মন বিচ রিসোর্ট। শীর্ষস্থানীয় সার্ফ রিসোর্ট, শীর্ষস্থানীয় ফ্যামিলি রিসোর্ট এবং শীর্ষস্থানীয় বিচ রিসোর্ট ক্যাটাগরিতে এ পুরস্কার লাভ করে প্রতিষ্ঠানটি।

সম্প্রতি মালদ্বীপে একটি অ্যাওয়ার্ড সেরিমনিতে এই পুরস্কার প্রদান করা হয়। সায়মন বিচ রিসোর্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহবুব রহমান রুহেল এবং বিপণন পরিচালক দারিউস রহমান দক্ষিণ এশিয়ার সম্মানজনক এই পুরস্কারগুলো গ্রহণ করেন।

 

শুক্রবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে সায়মন বিচ রিসোর্ট কর্তৃপক্ষ।

এতে জানানো হয়, সাউথ এশিয়ান ট্রাভেল অ্যাওয়ার্ড (সাটা) কর্তৃপক্ষ থেকে তিন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার অর্জন সায়মন বিচ রিসোর্টের জন্য অত্যন্ত সম্মানের। একদল নিষ্ঠাবান কর্মকর্তা সায়মনকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যেতে অতিথিদের সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করেছেন। এই প্রাপ্তিতে সম্মানিত অতিথিদেরও ধন্যবাদ প্রাপ্য। বছরের পর বছর তারা সায়মনের সেবা গ্রহণ করেছেন। তাদের অনেক স্মৃতিবিজড়িত সময় মিশে আছে সায়মনের সঙ্গে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, সেবাখাতে এই পুরস্কারগুলো সায়মন পরিবারের জন্য বিশেষ সম্মানের বার্তা বহন করে। এছাড়া শুধুমাত্র অনেকগুলো পুরস্কার প্রাপ্তিতে সীমাবদ্ধতা নয়; বরং এই অঞ্চলে পর্যটকের পছন্দের সেরা উদীয়মান গন্তব্য হিসেবে বিবেচিত হওয়ায় অনুষ্ঠানে বিশেষ দৃষ্টি কাড়ে বাংলাদেশ ও এর পর্যটন শিল্প। এজন্য সায়মন পরিবার গর্ববোধ করে। আমরা অত্যন্ত আশাবাদী দেশের পর্যটন শিল্প উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি লাভ করবে। একই সঙ্গে পর্যটকবান্ধব গন্তব্য হিসেবে সর্বত্র স্বীকৃতি লাভ করবে অনিন্দ্য সুন্দর বাংলাদেশ।

উল্লেখ্য, ১৯৬৪ সালে কক্সবাজারের প্রথম বেসরকারি হোটেল হিসেবে যাত্রা শুরু করে সায়মন কক্সবাজারে পর্যটন শিল্পের নতুন দিগন্তের সূচনা করে। কক্সবাজারের প্রাণকেন্দ্রে স্থাপিত এই হোটেলটি ছিল তৎকালীন সময়ের অন্যতম অভিজাত এবং আন্তর্জাতিক মানের হোটেল। মনোরম পরিবেশ, আন্তরিক সেবা ও অনন্য আতিথেয়তায় মানুষের মন জয় করে এটি। দেশ-বিদেশের বহু খ্যাতিমান মানুষের স্মৃতি বিজড়িত রয়েছে এর সঙ্গে। 

উপমহাদেশের অনেক বড় বড় ব্যবসায়ী, পেশাজীবী, রাজনীতিবিদ, চিত্রতারকার পদচারণায় মুখরিত হয়েছে হোটেল সায়মন-এর প্রাঙ্গন। পরবর্তীতে দেশের পর্যটন শিল্পে সোনালী ঐতিহ্যের সঙ্গে দীর্ঘ ৫০ বছরের পথ চলায় নতুন মাত্রা যোগ করার প্রত্যয়ে ২০১৫ সালের ২০ জানুয়ারি কক্সবাজারে যাত্রা শুরু করে সায়মন বিচ রিসোর্ট।

বরগুনার আলো